সার বিক্রির ডিলার নিয়োগ পাবেন যেভাবে!

ফসল উৎপাদনের জন্য ভালো মানের সার অপরিহার্য। সরকার নিজস্ব উদ্যোগে সার উৎপাদন করেন বা বিদেশ থেকে আমদানি করে। এই সার কৃষক যেন সহজে সংগ্রহ করতে পারে সেই জন্য সরকার ডিলার ও খুচরা বিক্রেতা নিয়োগ করে থাকে। সরকারি এই সেবার মাধ্যমে সারের ডিলার ও খুচরা বিক্রেতা নিয়োগ করা হয়।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে ডিলার নিয়োগ দেয়ার জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়া হয়। বিজ্ঞাপন অনুসারে ডিলার হতে আগ্রহী ব্যবসায়ীকে বিজ্ঞপ্তি অনুসারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করতে হবে।

সার ও বীজ মনিটরিং কমিটি আবেদনের প্রেক্ষিতে সরজমিনে পরিদর্শন করে প্রতিবেদন পেশ করবেন। বিভিন্ন প্রক্রিয়া শেষে প্রতি ইউনিয়নে ডিলার শূন্য থাকা সাপেক্ষে একজন পাইকারি বিক্রেতা ও একজন খুচরা বিক্রেতা নিয়োগের ব্যবস্থা করেন।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: ক. আবেদনপত্র খ. ৫,০০০/- টাকার ট্রেজারি চালান গ. ট্রেড লাইসেন্স সনদপত্রের সত্যায়িত কপি ঘ. গুদাম/দোকানের রেকর্ডপত্রের সত্যায়িত কপি ঙ. আবেদনকারীর ০২ কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি চ. জাতীয় পরিচয়পত্র/নাগরিকত্বের সনদ ছ. পাইকারির ক্ষেত্রে আয়কর সনদপত্রের সত্যায়িত কপি জ. আইনানুসারে অঙ্গীকারনামা ঝ. নিজস্ব ঘর না হলে ভাড়ার চুক্তিপত্র ঞ. খুচরা ৩০,০০০/- ও বিসিআইসি ডিলার-দুই লক্ষ টাকা জামানত।

প্রয়োজনীয় খরচ: পাইকারি সার ডিলার নিয়োগ-দুই লক্ষ টাকা জামানত, খুচরা সার বিক্রেতা নিয়োগ-ত্রিশ হাজার টাকা জামানত। সেবার সুবিধা: বৈধভাবে সার ব্যবসা করা যায়। সহজে কৃষকদের মাঝে সার বণ্টন করা যায়।

আবেদনের সময়: সারা বছর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা:

১. উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা

২. অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা

৩. কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা।

সেবা না পেলে কার কাছে যাবেন: উপ-পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয় ।বিস্তারিত তথ্যের জন্য: প্রয়োজনীয় ওয়েব সাইট : www.dae.gov.bd

শেয়ার করুন:

Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn

সম্পর্কিত পোস্ট

দেড়শ নারীকে স্বাবলম্বী করছেন ফেরদৌসি পারভীন!

পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি নারীদের একটা অংশ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত। কিন্তু পুঁজির অভাবে অনেকেই উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারছে না। থামি. পিননসহ বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী পোশাক প্রস্তুত করতে

উদ্যোক্তাদের জন্য মানসিক চাপ কমানোর কিছু পন্থা

আমরা আজকে উদ্যোক্তাদের জন্য আলোচনা করবো মানসিক চাপ কমানোর পন্থা নিয়ে কারন উদ্যোক্তারা অনেকেই মানসিক চাপ নিয়ে তার উদ্যোগ কে সফলার দিকে নিয়ে যেতে পারে

বাড়ির ছাদে ছাগল পালন করে স্বাবলম্বী রায়হান!

‘পরিবারে কোনো আর্থিক অনটন ছিল না। পড়েছি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে। তাই আমার মতো ছেলে কেন ছাগল পালন করবে, এটাই ছিল মানুষের আপত্তির কারণ। কিন্তু মানুষের সেসব