বিপদে পড়তে না চাইলে লোভী মানুষ চিনুন!

পৃথিবীতে অনেক মানুষ বসবাস করে। এরা একেকজন একেক রকম হয়ে থাকেন। একজনের সাথে আরেকজনকে মেলানো বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। এদের মাঝেই এমন কতগুলো মানুষ বসবাস করে যারা ভীষণ লোভী হয়ে থাকেন। লোভের জন্য তারা যেকোনো কিছু করে ফেলতে পারেন।

ভাবছেন এতে আপনার সমস্যা কী? সমস্যা কিন্তু আছে, এই লোভী মানুষদের কেউ যদি আপনার কাছের মানুষ হয়ে থাকেন, কিংবা হয়ে থাকেন ভালোবাসার মানুষটি, তাহলে কিন্তু মহা বিপদ। সে সর্বদা নিজের স্বার্থে আপনাকে ব্যবহার করবে, দিন শেষে নিজেকে আপনার মনে হবে পাপোশের মতন। আর তাই এই লোভী মানুষগুলোকে চিনে রাখাটা ভীষণ জরুরী। কীভাবে চিনবেন? জেনে নিন চেনার কয়েকটি সহজ উপায়।

মিষ্টিভাষী: এরা মিষ্টিভাষী হয়ে থাকেন। এদের কথায় মিষ্টতা থাকে। মিষ্টি কথা বলে এরা মানুষকে ভুলিয়ে থাকেন। সবসময় ভালো কথা বলে। সবসময় মন যোগানোর চেষ্টা করে। এরা আপনার সাথে ভালো ব্যবহার করে আপনাকে এরা বিপদে ফেলে দিতে পারে যেকোনো মুহূর্তে। আপনি বুঝতেও পারবেন না যে মানুষটা এত সুন্দর করে কথা বলে সে কি করে আপনার এত বড় ক্ষতি করল।

এদের কোনো প্রকৃত বন্ধু নেই: এরা মিষ্টি কথা বলে অনেক বন্ধু তৈরি করে ঠিকই কিন্তু সত্যিকার অর্থে এদের কোনো প্রকৃত বন্ধু নেই। এরা শুধু প্রয়োজনেই মানুষের সাথে মিশে থাকেন। প্রয়োজন শেষ হলে সঙ্গ ছেড়ে দেন। এক বন্ধুর থেকে আরেক বন্ধুর কাছে সুযোগ বেশি পেলে তারা বন্ধুত্ব নষ্ট করতেও দ্বিধাবোধ করেন না।

ওটা না, এটা: লোভী ব্যক্তিরা সবকিছু হিসেব মিলিয়ে করে। যেখানে তার বেশি লাভ থাকে সেদিকেই যায়। ওটার চেয়ে এটাতে যদি তার লাভ বেশি হয় তাহলে সে এটা করতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।

ঐ জিনিসটাও চাই: এরা কোনো জিনিসের প্রতি আকর্ষিত হলে অল্পতে সন্তুষ্ট থাকে না। তারা যত পারে মানুষের কাছ থেকে স্বার্থ সিদ্ধি করেই যায়।

সব কাজ তাড়াতাড়ি করে: এরা সব ধরনের কাজ অনেক তাড়াহুড়ার সাথে করে থাকে। যেকোনো একটা কাজ করে তারা থেমে থাকে না অনেক কাজ একসাথে অনেক তাড়াহুড়ো করে থাকে। কোনো কিছুর লোভ তারা সামলাতে পারে না।

অনেক বেশি কথা বলে: লোভী মাানুষেরা অনেক বেশি কথা বলে থাকে। বলতে গেলে এরা বাচাল প্রকৃতির হয়ে থাকে। একবার কথা শুরু করলে এরা থামতে চায় না। তবে এমন কথা বলে যা শুনলে সবার রাগ ওঠে। ভালো কথাই মিষ্টি স্বরে বলে।

সবাইকে উত্ত্যক্ত করে: এরা মাঝে মাঝে আশেপাশের সবাইকে অনেক উত্ত্যক্ত করে। বিভিন্নভাবে তারা সবাইকে উত্ত্যক্ত করে থাকে। অতিরিক্ত কথা বলে, বারাবার এক কথা বলে, যেকোনো জিনিসের জন্য ধরনা ধরে তারা সবাইকে উত্ত্যক্ত করে বসে।

শেয়ার করুন:

Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn

সম্পর্কিত পোস্ট

দেড়শ নারীকে স্বাবলম্বী করছেন ফেরদৌসি পারভীন!

পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি নারীদের একটা অংশ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত। কিন্তু পুঁজির অভাবে অনেকেই উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারছে না। থামি. পিননসহ বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী পোশাক প্রস্তুত করতে

উদ্যোক্তাদের জন্য মানসিক চাপ কমানোর কিছু পন্থা

আমরা আজকে উদ্যোক্তাদের জন্য আলোচনা করবো মানসিক চাপ কমানোর পন্থা নিয়ে কারন উদ্যোক্তারা অনেকেই মানসিক চাপ নিয়ে তার উদ্যোগ কে সফলার দিকে নিয়ে যেতে পারে

বাড়ির ছাদে ছাগল পালন করে স্বাবলম্বী রায়হান!

‘পরিবারে কোনো আর্থিক অনটন ছিল না। পড়েছি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে। তাই আমার মতো ছেলে কেন ছাগল পালন করবে, এটাই ছিল মানুষের আপত্তির কারণ। কিন্তু মানুষের সেসব