ডেকোরেটর ব্যবসায় মাসে আয় ২লাখ টাকা!

ডেকোরেটর ব্যবসা গ্রাম শহর সব জায়গায় লাভজনক ব্যবসা হিসাবে বেশ পরিচিত। আধুনিক যুগের সকল অনুষ্ঠান ও আপ্যায়নে ডেকোরেটর অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ও অত্যাবশ্যকীয় উপাদান। ডেকোরেটর ছাড়া বর্তমানে কোন উৎসব, অনুষ্ঠান ভালো ভাবে সম্পন্ন করার কথা চিন্তাও করা যায় না।

ভালো মানের ডেকোরেশন যে কোন অনুষ্ঠানকে সুন্দর ও প্রাণবন্ত করে তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এছাড়াও বর্তমানে বিভিন্ন ঘরোয়া আয়োজন ও আপ্যায়নে ডেকোরেটর ভাড়া করা হয়ে থাকে। বিয়ে, বৌ-ভাত, জন্মদিন ইত্যাদি অনুষ্ঠানে ডেকোরেটর ছাড়া আয়োজন সম্পন্ন করা অসম্ভব প্রায়।

যে কোন উদ্যোক্তা একটি চ্যালেঞ্জিং ব্যবসা হিসেবে নিজ এলাকাতে এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। গেইট, প্যান্ডেল, লাইটিং, খাবারের জন্য প্লেট ইত্যাদি মালামাল ভাড়ায় সরবরাহ করে এই ব্যবসাটি শুরু করতে হয়। সৎ ও পরিশ্রমী উদ্যোক্তারা এই ব্যবসাটি শুরু করে সহজেই সফল হতে পারেন।

আপনার নিকটস্থ বাজারে একটি দোকান নির্ধারণ করে এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। ডেকোরেটর ব্যবসা লাভজনক ব্যবসার ধারণা। এই ব্যবসাটি শুরু করতে অনেক বেশি পুজিঁর প্রয়োজন হয় না। তুলনা মূলক ভাবে এই ব্যবসায় লাভের পরিমাণ বেশি।

ডেকোরেটর ব্যবসা করলে ঝুকিঁর পরিমাণ কম। নিজের এলাকাতেই এই ব্যবসাটি শুরু করা যায়। ক্রমবর্ধমান হারে এই ব্যবসার চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে। বর্তমানে অনেক উদ্যোক্তা এই ব্যবসাটি শুরু করতে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। ব্যবসাটি শুরু করতে আনুমানিক ২ লাখ টাকা থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত পুজিঁ বিনিয়োগ করতে হতে পারে।

কিভাবে ডেকোরেশন ব্যবসাটি শুরু করবেন: প্রথমেই ডেকোরেশনের আনুষঙ্গিক মালামাল রাখার জন্য একটি দোকান ভাড়া নিতে হবে। তারপর সকল আনুষঙ্গিক মালামাল ক্রয় করে গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী সেবা প্রদান করতে হবে।

বিভিন্ন অনুষ্ঠানের লাইটিং, প্যান্ডেল তৈরী, গেট সাজানো, রান্না ও খাবার পরিবেশনের সকল সরঞ্জাম ইত্যাদি ভাড়ার বিনিময়ে সরবরাহ করে এই ব্যবসাটি পরিচালনা করতে হয়। সাধারণত এই সব কাজ গুলো গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী সম্পন্ন করতে হয়।

ব্যবসাটি ঠিক ভাবে পরিচালনা করার জন্য দক্ষ লোক নিয়োগ করতে হবে। গ্রাহক: বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজকরাই এই ব্যবসার প্রধান ভোক্তা।এই ব্যবসাটি শুরু করতে কোন যোগ্যতার দরকার হয় না। সম্ভাব্য ইনকাম: ডেকোরেটর ব্যবসা শুরু করে প্রতি মাসে আনুমানিক ৪০ হাজার টাকা থেকে ২ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করা যায়।

শেয়ার করুন:

Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn

সম্পর্কিত পোস্ট

দেড়শ নারীকে স্বাবলম্বী করছেন ফেরদৌসি পারভীন!

পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি নারীদের একটা অংশ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত। কিন্তু পুঁজির অভাবে অনেকেই উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারছে না। থামি. পিননসহ বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী পোশাক প্রস্তুত করতে

উদ্যোক্তাদের জন্য মানসিক চাপ কমানোর কিছু পন্থা

আমরা আজকে উদ্যোক্তাদের জন্য আলোচনা করবো মানসিক চাপ কমানোর পন্থা নিয়ে কারন উদ্যোক্তারা অনেকেই মানসিক চাপ নিয়ে তার উদ্যোগ কে সফলার দিকে নিয়ে যেতে পারে

বাড়ির ছাদে ছাগল পালন করে স্বাবলম্বী রায়হান!

‘পরিবারে কোনো আর্থিক অনটন ছিল না। পড়েছি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে। তাই আমার মতো ছেলে কেন ছাগল পালন করবে, এটাই ছিল মানুষের আপত্তির কারণ। কিন্তু মানুষের সেসব